যোগাযোগ

হেরাল্ডিক হাইটস, ২/২, (লেভেল-৪, বি-৪),
ব্লক-এ, মিরপুর রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা -১২০৭।
ফোন: ৯১৩ ০৪৭৯ ও ৯১৪ ৬১৯৫,
ফ্যাক্স: ৯১৪ ৬১৯৫
ই-মেইল- nasima.akhter@thp.org

Contact with Secretariat:

DR. BADIUL ALAM MAJUMDAR/
NASIMA AKHTER JOLY

Heraldic Heights, 2/2, (Level-4, B4), Block-A,
Mirpur Road (Near Care Hospital) Mohammadpur, Dhaka-1207
Phone: 9130479, 9146195
Fax: 9146195
or,
you can email us.

Website: www.bikoshitonari.net,

News Archive: https://bnnnewsarchive.wordpress.com

Fecebook Page: https://www.facebook.com/WomenLeaderNetwork

One thought on “যোগাযোগ

  • December 3, 2018 at 6:34 am
    Permalink

    আমি সাইফুল দেওয়ান, (কুয়েত প্রবাসী )
    পিতা- কাবিল দেওয়ান, ( কুয়েত প্রবাসী )
    মাতা- জোহরা বেগম,
    দক্ষিন নারগানা, জামালপুর হতে বলছি ।

    গত ২৭শে নভেম্বর ২০১৮ ইং তারিখ আমার ছোট বোন “মারিয়া” (১৫ বছর বয়স, অষ্টম শ্রেনীত্ অধ্যয়নরত) আমাদেরই গ্রামের লোকমান মাষ্টার এর ২য় ছেলে “তারেক” আমার নাবালিকা ছোট বোনকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাকে ভাগিয়ে নিয়ে গেছে।

    আপনার অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, লোকমান মাষ্টার তার এই ছেলের জন্য ২বার বিয়ের জন্য প্রস্তাব নিয়ে এসেছিলেন। কিন্ত আমার মা তাদের ফিরিয়ে দিয়েছেন কারন আমার বোন নেহাতই একটি নাবালিকা।

    এই ঘটনা আমরা ইতিমধ্যেই আমাদের ইউনিয়ন চ্যেয়ারমান জনাব ফারুক মাষ্টারকে অভিহিত করেছি। তিনি আমার মা কে সাথে সাথে লিখিত অভিযোগ নিয়ে কালীগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করতে বলেন। থানা থেকে পুলিশ এসে সারেজমিনে আমাদের বাড়ি ও লোকমান মাষ্টার এর বাড়িতে পরিদর্শন করেন এবং লোকমান মাষ্টার কে দুইদিনের মধ্যে আমার বোনকে আমাদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার আদেশ করেন।
    কিন্তু আমরা এখন শুনতে পাচ্ছি যে তাদের নাকি বিয়ে সমপন্ন হয়েছ ! কিন্তু সেইটা কিভাবে সম্ভব একটি ১৫ বছরের নাবালিকাকে কিভাবে সম্ভব বিয়ে দেয়া !

    আজ দীর্ঘ্য ৬ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরেও আমার বোনের কোন অস্তিত্ব খুঁজে পাচ্ছি না।
    জনাব ফারুক মাষ্টার ও বলেছেন যেভাবেই হোক তিনি আমার ছোট বোনকে ৩০ই নভেম্বর এর ভিতরে আমাদের বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে আনবেন অন্যথায় কালিগঞ্জ থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করতে !

    সেই মোতাবেক আমার মা গতকাল ১লা ডিসেম্বর কালীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করতে যান। কিন্তু কালীগঞ্জ থানার পুলিশ আমার মাকে বলেছেন যদি মামলা করি তাহলে নাকি আমার বোনকে শরীরে থানায় এসে সবার সামনে ফরেনসিক চেক করবে। এই কথা শুনে আমার মা লজ্জায় বাসায় ফিরে যান।

    আপনার কাছে আকুল আবেদন এই যে, এই ঘঠনার সঠিক বিচার ও ঘটনার নেপথ্যে তার বাবা ও মা, নানা মতলিব মিয়ার বিচার কামনা করছি ও আমার বোনকে আমাদের কাছে ফেরত চাচ্ছি।
    যাতে করে অন্যকেও এই ধরনের কাজ করতে না পারে অদূর ভবিষ্যতে।

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.