সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় নারী

সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় নারীর পশ্চাৎপদতার ইতিহাস অতি প্রাচীন। রাষ্ট্রীয়, সরকারী এমনকি পারিবারিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় এখনও বাংলাদেশের নারীরা পিছিয়ে আছেন। তবে ইদানিংকালে নারীরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় এগিয়ে আসছেন। নারীদের ক্ষমতায়িত করার জন্য সরকারও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। নারীরা স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন এবং সফলতাও লাভ করছেন। বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের নেত্রীরাও এক্ষেত্রে লক্ষ্যণীয়ভাবে এগিয়ে আসছেন।
২০০৯ সালে অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের ৪৫ জন নারীনেত্রী ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন এবং তাদের মধ্যে ১৮ জন জয়যুক্ত হন।
২০১০ সালে স্থনীয় সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ ও সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের ২১২ জন নারীনেত্রী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২ জন ও সদস্য পদে ২১০ জন, চেয়ারম্যান ১ জন ও সদস্য পদে ১০২ জন জয়যুক্ত হন।
এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের স্থানীয় কমিটি, স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি এবং বিভিন্ন সামাজিক-সাংসকৃতিক কমিটিতে ২৩৫০ নারী নেত্রীর অভিগম্যতা তৈরি হয়েছে।